Uncategorized

শাওমি নিয়ে এল থার্ডজেন আন্ডার ডিসপ্লে ক্যামেরা

স্মার্টফোন গুলোর স্ক্রিন টু বডি রেশিও বাড়ানোর একটা প্রচেষ্টা আমরা গত কয়েক বছর ধরেই দেখতে পাচ্ছি। প্রথমে আমরা দেখলাম ফোন গুলোর সাইড ভেজেল কমানো হয়েছে। তারপর চিন এরিয়া সংকুচিত করা হল। এর পরে এল নচ। সেই নচ আবার ধীরে ধীরে আকারে ছোট করে ওয়াটার ড্রপ নচ এ নিয়ে আসা হল।

এরপর এল পাঞ্চহোল ক্যামেরা কিন্ত তাও ফুল স্ক্রিন ডিসপ্লে এক্সপেরিয়েন্স পাওয়া যাচ্ছিলো নাহ।  পপআপ সেলফি ক্যামেরা দিয়ে আপত ভাবে ফুল ভিউ এক্সপিরিয়েন্স পাওয়া গেলেও এই টেকনোলজি যে, ফিউচার প্রুফ না এটা সবাই ধারনা করতে পেরেছিল।  । এসবের মধ্যেও কোম্পানিগুলোর রিসার্চ এন্ড ডেভেলাপমেন্ট টিম সবসময় চেষ্টা করে যাচ্ছিল আন্ডার ডিসপ্লে ক্যামেরা মডিউল কিভাবে দেওয়া যায় তা নিয়ে।

এমন একটি ফোন নির্মাতা কোম্পানি হচ্ছে শাওমি। গতকাল তাঁরা এক ইউটিউব ভিডিওতে তাঁদের থার্ডজেন আন্ডার ডিসপ্লে ক্যামেরা মডিউল সহ একটি ফোন শোঅফ করে। বস্তুত শাওমির সদ্য রিলিজ হওয়া তাঁদের এনিভার্সারি এডিশন Mi 10 Ultra ফোনে আন্ডার ডিসপ্লে ক্যামেরা দিয়ে দিয়েছে। সাথে তাঁরা Mi 10 Ultra কেও পাশাপাশি রাখে তুলনা করে দেখাচ্ছিল। বলে রাখা ভাল Mi 10 Ultra তে লেফট সাইডে একটি পাঞ্চ হোল ক্যামেরা রয়েছে।

Xiaomi’s 3rd Generation Under-Display Camera

এখন আপনাদের অনেকের মনে হয়ত প্রশ্ন এসেছে তাহলে প্রথম দুই জেনেরাশন গেল কই? আদতে শাওমি অনেক আগে থেকেই রিসার্চ শুরু করেছিল। গেল বছর জুনে প্রথম জেনেরাশন ডেভেলপ করেছিল।। তারপর আবার অক্টোবরে দ্বিতীয় জেনেরাশন ইন্ট্রোডিউস করে। কিন্তু এতে দেখা যাচ্ছে সীমাবদ্ধতা গুলো রয়ে যাচ্ছে।

চ্যালেঞ্জটা কোথায় এটা যদি সংক্ষেপে বলি তাহলে বিষয়টা হচ্ছে ভালো ছবি তোলার জন্য ক্যামেরা লেন্সে ভালো আলো প্রবেশের প্রয়োজন। কিন্তু আমরা জানি বর্তমান ডিসপ্লে গুলোর পিক্সেল ডেনসিটি অনেক বেশি। মানে অনেক ক্লোজলি এলাইন থাকে যার মধ্যে দিয়ে ডিসপ্লের মধ্যে দিয়ে আলো ক্যামেরা লেন্সে প্রবেশ করতে পারে নাহ। এটা সল্ভ করার জন্য যদি কিছু পিক্সল বাদ দিয়ে দেওয়া হয় তাহলে আবার দেখা যাচ্ছে ঐ স্পেসিফিক এরিয়ার সাথে পুরো ডিসপ্লের পিক্সেলের ডেনসিটি সমান না হওয়ার কারনে আলাদা করে বুঝা যায়। বলতে গেলে উভয় সংকট।

তো শাওমি থার্ড জেনেরাশনে এই প্রবলেম ফিক্স করে ‘অলমোস্ট পার্ফেক্ট’ আন্ডার ডিসপ্লে ক্যামেরা হিসেবে দাবি করছে। শাওমির আগের দুই জেনেরাশনে ক্যামেরা মডিউল এর উপরের জায়গাতে প্রতি ৪টা পিক্সেলের মধ্যে ৩টা বাদ দিয়ে দিতে হয়েছিল ট্রান্সপারেন্ট রেখে আলো প্রবেশের সুযোগ করে দেওয়ার জন্য।

কিন্তু নতুন এই জেনেরাশনে তাঁরা ক্লেইম করছে তাঁরা কোনো পিক্সেল বাদ না দিয়েই সাব-পিক্সেলের স্পেস গুলোকে আলো প্রবেশের জন্য ব্যবহার করেছে। যার ফলে পুরো ডিসপ্লে জুড়ে সেম কালার একুরেসি,ব্রাইটনেস, পিক্সেল ডেনসিটি থাকবে। এখানে একটা বিষয় উল্লেখ্য, কোন টাইপের প্যানেলের উপর তাঁরা তাঁদের এক্সিপেরিমেন্ট চালাচ্ছে এটা জানা যায়নি।

শাওমি সিইও মতে এই টেকনোলজি মাস প্রডাকশন এর জন্য প্রস্তুত। তাঁরা আশা করছে ২০২১ এর সেকেন্ড অথবা থার্ড কোয়ার্টারে আন্ডার ডিসপ্লে ক্যামেরা সমৃদ্ধ ফোন বাজারে আনতে পারবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *